স্টাফ রিপোর্টার, সীতাকুণ্ড থেকে :

সীতাকুণ্ড সোনাইছড়ি ইউনিয়নের ঘোড়ামারা গ্রামে প্রতিবন্ধী আপন ভাইকে আটকে রেখে মাকে মারধর করেছে কুলাঙ্গার ছেলে। জোরপূর্বক সম্পত্তি লিখে না দেওয়ায় এমন কান্ড ঘটিয়েছেন বড় ভাই মহসিন (৫২) ও তার স্ত্রী সন্তানরা।

এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে সীতাকুন্ড মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন বৃদ্ধা মা রোকেয়া বেগম (৭৩)। সীতাকুণ্ড মডেল থানার এসআই ফারুক ডায়েরী করার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে প্রতিবন্ধী ছেলেদের উদ্ধার করে মায়ের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

ডাযেরীর বিবরণমতে, সোনাইছড়ি ইউনিয়নের ঘোড়ামারা গ্রামের মৃত ইঞ্জিনিয়ার মোস্তফা কামাল ও রোকেয়া বেগমের ৩ ছেলের মধ্যে মেজো ছেলে আমজাদ হোসেন (বিটু) ও ছোট ছেলে দাউদ হোসেন দুইজনেই শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী। আর এ সুযোগটি কাজে লাগিয়ে প্রতিবন্ধী মেজো ভাইকে ঘরে আটকে রেখে তার কাছ থেকে সম্পত্তি জোরপূর্বক লিখে নেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে ।

মা রোকেয়া বেগম বলেন, তার বড় ছেলে মহসিন ও তার স্ত্রী সন্তানেরা মিলে তার প্রতিবন্ধী মেজো ছেলেকে চিকিৎসা করতেও নিতে দিচ্ছে না। সম্পত্তি জোর করে তার কাছ থেকে লিখে নেওয়ার জন্য তাকে জোরপূর্বক জিম্মী করে আমার কাছ থেকে  ৪ দিন ধরে আলাদা করে তার ঘরে আটকে রেখেছে ।

মঙ্গলবার আমার মেজো ছেলের সাথে কথা বলতে চাইলে প্রতিবন্ধী ছোট ছেলেও আমাকে গালি গালাজ করে মারধর করে এবং প্রাণরাশের হুমকি দিয়ে আমজাদ হোসেন (বিটু)কে টেনে হিচড়ে তাদের ঘরে নিয়ে আটকে রাখেে। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে বড় ছেলে মহসিন ও তার স্ত্রী ছেলেসহ ৪ জনকে আসামিকে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (নং-১৫৫০) করেছি।

শুচ/ইখ/আআফা