স্টাফ রিপোর্টার, সীতাকুণ্ড থেকে :

সীতাকুণ্ডে এমপি’র বাড়ীতে মেম্বার সমর্থিত সন্ত্রাসীদের দু‘দফা হামলায় আওয়ামী লীগ নেতা আহত হয়েছে। এমনকি হামলার সময় বাড়ীর শিশু কন্যা ও স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। 

এ ঘটনায় শনিবার সীতাকুণ্ড থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। এছাড়া সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভূক্তভোগির পরিবার।

বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়াড আওয়ামী লীগ সহ-সাধারণ সম্পাদক দাবি করে মোঃ রাসেল সংবাদ সংবাদ সম্মেলনে কান্না জড়িত কন্ঠে লিখিত বক্তব্যে বলেন, শনিবার সকাল ১০টায় স্থানীয় মেম্বার শাহাব উদ্দীনের সাথে রাস্তার বিষয় নিয়া দীঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।

সে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য স্হানীয় এমপিকে আমার বিরুদ্ধে বুঝানোর জন্য তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে যায়। আমি শুনে এমপিকে বুঝানোর জন্য সেখানে গিয়ে দোতালায় উঠা মাত্র আওয়ামী লীগের নেতা ও মেম্বার শাহাব উদ্দিনের নেতৃতে সন্ত্রাসী জাহেদ, হানিফ, রিপন, রনি, মিরাজ, আবুল কাশেম ও মো. আলীসহ ৮/১০ একটি সান্ত্রাসী গ্রুপ বাসায় এমপি না থাকায় হামলা চালিয়ে আমাকে এলোপাথাড়ি কিল ঘুষি ও লাথি মেরে গুরুতর আহত করে এবং তারা আমার শাট ছিড়ে ফেলে।

সম্মলনে আরো বলেন, আমি হামলার শিকার হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ত্রাসীরা এমপি’র বাড়ী থেকে এলাকায় গিয়ে আমার বাড়ী ভাংচুর করে। এ সময় বাধা দিলে সন্ত্রাসীরা আমার ভাই সোহেল, রুবেল, আমার মা ও বড় ভাবী বাধা দিলে তারা তাদেরকেও মারধার করে।

একপর্যায়ে আমার ভাতিজি (১২) স্কুল থেকে বাড়ীতে আসার সময় আমাদের পরিবারের সদস্যদেরকে মারধরের দৃশ্য দেখে সে চিৎকার দেয়। এ সময় সন্ত্রাসী হানিফের নির্দেশে সন্ত্রাসী রিপন রনি ও মিরাজ ভাতিজিকেও এলোপাথাড়ি মারধর করে। সন্ত্রাসী রিপন, রনি মিরাজ মিলে তার স্কুল ড্রেসের কাপড় চোপড়ও ছিড়ে ফেলে এবং শ্লীলনতাহানীর চেষ্টা করে।

এঘটনায় আহত রাসেলের মা তমনা খাতুন বাদী হয়ে সীতাকুণ্ড থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।