স্টাফ রিপোর্টার :

অবৈধপথে অর্জন করা অর্থের মাধ্যমে নামে-বেনামে জমি ক্রয়সহ চট্টগ্রামের হালিশহরে গড়ে তুলেছেন তুলেছেন ডুপ্লেক্স বহুতল ভবন। কুমিল্লায় গ্রামের বাড়িতেও রয়েছে তিন তলা ভবন, আছে মোটা অঙ্কের এফডিআর, ডিপিএসসহ অঢেল সম্পদ।

এমন অভিযোগ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সাবেক অডিট কর্মকর্তা নুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে জমা পড়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক)। গত ২৯ অক্টোবর দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর দফতরে এ অভিযোগ করা হয়।

অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, ১৯৭৫ সালে বাংলাদেশ রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের জুনিয়র অডিটর হিসেবে নিয়োগ পান কুমিল্লা জেলার বাসিন্দা নুরুল ইসলাম। দীর্ঘদিন চাকরিতে থেকে আশ্রয় নিয়েছেন নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির।

চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর থানার এ ব্লকের ১৩ নম্বর লেইনের ১ নম্বর রোডের ‘ইসলাম ম্যানশন’ নামীয় প্রায় ৭ তলা বিশিষ্ট ডুপ্লেক্স ৭ তলা বাড়িও (বাড়ি-১, বাড়ি-৩) গড়েছেন। ভবনের নিচের অংশে রয়েছে দোকানপাট। ভবনের পুরো জায়গায় রয়েছে প্রায় ৮ শতাংশ জমি। এ বাড়ি ও জায়গার বর্তমান বাজারমূল্যে প্রায় ১০ কোটি টাকা।

আবার হালিশহর থানার সাগরপাড় সংলগ্ন বারনিঘাটা রয়েছে ৪০ শতাংশ জমি। কুমিল্লা জেলার কোম্পানীগঞ্জে নিজ বাড়িতে করেছেন তিনতলা বিশিষ্ট ভবন। সেখানে তার নামে-বেনামে রয়েছে জায়গা-জমি। এছাড়া তফশিলভুক্ত ব্যাংকে বিপুল অংকের টাকার এফডিআর, ডিপিএস ও বীমার অভিযোগও রয়েছে।

এ ব্যাপারে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর এক কর্মকর্তা অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। রেলের সাবেক এই কর্মকর্তার অঢেল সম্পদের হিসাবের তথ্য চাওয়া হবে। তথ্যে অবৈধ সম্পদ অর্জনের সন্ধান মিললে দুদক আইনে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে নুরুল ইসলাম বলেন, ‘দুদকে দেওয়া অভিযোগ মিথ্যা। কেউ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে অভিযোগ দিয়েছে। আমার কেনা সব সম্পত্তি বৈধ টাকায় কেনা। আমার পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রি ও রেলে চাকরির টাকায় এসব সম্পদ কেনা হয়েছে। তদন্ত হলে সেখানে দেখাতে পারবো।’

প্রসঙ্গত, নুরুল ইসলাম প্রায় ৪৪ বছর আগে জুনয়ির অডিটর হিসেবে যোগদান করেছিলেন রেলেওয়ে পূর্বাঞ্চল কার্যালয়ে। ওই সময় তার বেতন ছিল মাত্র ২২০ টাকা। চাকরিও করেন প্রায় ৩৫ বছর। অবসরের আগে তার সবশেষ বেতন ছিল প্রায় ৪০ হাজার টাকা। চাকরিতে থাকাকালীন নিয়োগ বাণিজ্যসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে সাবেক এই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

শুভ চট্টগ্রাম/ইখ