স্টাফ রিপোর্টার : 

স্থগিত হওয়া চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের সময় নির্ধারণ হয়নি এখনও। কিন্তু কেন্দ্রভিত্তিক এজেন্টদের তালিকা তৈরিতে নেমেছে নগর আওয়ামী লীগ। এ জন্য ৭ নভেম্বরের মধ্যে কেন্দ্রভিত্তিক নির্বাচনী এজেন্টদের তালিকা জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বুধবার (২১ অক্টোবর) নগরীর বাগমনিরাম ওয়ার্ডের তিনটি ইউনিটের পৃথক সভায় নেতাদের উদ্দেশে তিনি এ নির্দেশনা দেন। সাবেক মেয়র বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে দলের মনোনীত প্রার্থী নগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম রেজাউল করিম চৌধুরী। উনাকে জয়যুক্ত করতে হলে আমাদের সকল সাংগঠনিক শক্তি প্রয়োগ করতে হবে। নির্বাচনে কেন্দ্রভিত্তিক এজেন্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিগত বিভিন্ন নির্বাচনে দেখা গেছে, ভোটের আগের রাতেও কোনো কোনো কেন্দ্রের এজেন্টের তালিকা নগর আওয়ামী লীগের হাতে পৌঁছেনি। তড়িঘড়ি করে এজেন্ট যোগাড় করে পরের দিন নির্বাচনী কাজ চালাতে হয়েছে।

নাছির বলেন, ‘তৃণমূলের নেতৃবৃন্দকে নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে-আগামী ৭ নভেম্বরের মধ্যেই স্ব স্ব কেন্দ্রের এজেন্টের তালিকা নগর আওয়ামী লীগের দফতরে পাঠাতে হবে। তৃণমূল থেকে পাঠানো তালিকায় যদি কোনো বিতর্কিত কাউকে অন্তর্ভুক্ত করা হয় বা তালিকা থেকে পরীক্ষিত প্রকৃত কোনো ত্যাগী নেতাকর্মী বাদ পড়ে, সেক্ষেত্রে নগর আওয়ামী লীগ নিজস্ব সিদ্ধান্তে ওই তালিকা পরিমার্জন বা সংশোধন করার এখতিয়ার রাখে। এজেন্টের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়ে দলের বিপক্ষে কাজ করবেন- এমন কর্মকাণ্ড এবারের চসিক নির্বাচনে হতে দেওয়া যাবে না।’

একই সভায় নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘চসিক নির্বাচনে দলের মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করার বিকল্প কিছু নেই। আমাদের সর্বশক্তি দিয়ে মাঠে নামতে হবে।’

নির্বাচিত হলে সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের গৃহীত সব প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দেন এম রেজাউল করিম চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘জনগণের ভোটে যদি নির্বাচনে বিজয়ী হতে পারি তাহলে আমার প্রথম কাজ হবে তিনটি। নগরবাসী ট্যাক্স প্রদানে যাতে কোনো ধরণের হয়রানির শিকার না হয় সেটা নিশ্চিত করা। মানুষ যাতে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা পায় সেজন্য নগরীর ৪১ ওয়ার্ডে ফ্রি স্বাস্থ্যসেবা ক্যাম্প করা হবে। বিগত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের গৃহীত সকল প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।’

প্রসঙ্গত. গত ২৯ মার্চ চসিক নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতিতে সেটি স্থগিত হয়। মেয়র হিসেব আ জ ম নাছির উদ্দীনের মেয়াদ শেষের পর ৬ আগস্ট থেকে সরকার মনোনীত চসিকের প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন।

সভায় নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সুনীল সরকার, উপদেষ্টা শফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ ও চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, বন ও পরিবেশ সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, ত্রাণ ও সমাজকল্যান সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবু তাহের, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, উপ প্রচার সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, সদস্য বেলাল আহমদ, সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, মোরশেদ আকতার চৌধুরী, বাগমনিরাম ওয়ার্ডের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আবুল বশর বক্তব্য রাখেন।

শুভ চট্টগ্রাম/ইখ