নিজস্ব প্রতিবেদক :
স্ত্রী-পূত্রসহ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও বিভাগীয় করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এবিএম আজাদ এনডিসি।

রবিবার সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন শেখ ফজলে রাব্বি। তিনি জানান, চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটস্থ বিআইটিআইডি থেকে শনিবার রাতে সর্বশেষ নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে ৬২৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫১ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এ নিয়ে চট্টগ্রামে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৮৫০ জনে। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত ১ জনের মৃত্যু ঘটেছে। যা নিয়ে করোনায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন মোট ২৭৯ জন।

আক্রান্তদের মধ্যে ২৩ জন চট্টগ্রাম মহানগরীর এবং ২৮ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। উপজেলা পর্যায়ে ২৮ জনের মধ্যে ২৫ জন বাঁশখালী উপজেলার। এরমধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ ছাড়াও তাঁর স্ত্রী লায়লা আজাদ এবং তাঁর বড় পুত্র শুভ করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। তারা বর্তমানে ডিসি হিলস্থ বাংলোতে হোম আইসোলেশনে আছেন। তাঁদের শারিরীক অবস্থা স্থিতিশীল আছে বলে জানান সিভিল সার্জন।

এবিএম আজাদ বিভাগীয় করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি। চট্টগ্রাম বিভাগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে শুরু থেকেই সক্রিয় নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন তিনি। সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে করোনা চিকিৎসা সেবা ও হোম আইসোলেশন সেন্টার চালুকরণ, সাধারণ বেডের পাশাপাশি ভেন্টিলেটরসহ আইসিইউ বেড স্থাপন, অক্সিজেন সরবরাহ, খাদ্য সরবরাহ কাজে তিনি নিরলস ভূমিকা রেখে চলেছেন বলে জানান সিভিল সার্জন শেখ ফজলে রাব্বি।