নিজস্ব প্রতিবেদক :

ভারতের ত্রয়োদশ রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি আর নেই। ভারতীয় সময় সন্ধ্যা সোয়া ছয়টায় তাঁর পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় টুইট করে এই কথা জানিয়েছেন। দীর্ঘ এক পক্ষকাল দিল্লির আর্মি হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করে চুরাশি বছর বয়সে চলে গেলেন ভারতীয় রাজনীতির চাণক্য প্রণব বাবু।

অভিজিৎ টুইটে লিখেন, গভীর বেদনা নিয়ে জানাচ্ছি যে আমার বাবা শ্রী প্রণব মুখোপাধ্যায়ের জীবনাবসান হয়েছে। চিকিৎসকরা তাকে বাঁচানোর সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন। তার জন্য ছিল ভারতবাসীর অনেক প্রার্থনা ও দোয়া।

এর আগে সোমবার চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন যে, কোমায় থাকা প্রনব মুখোপাধ্যায়ের শরীরের অবস্থা খারাপ হচ্ছে। গত কদিন ধরে তিনি গভীর কোমায় রয়েছেন।

তার চিকিৎসকরা জানান, রোববার রাত থেকে তার শরীরের অবস্থা খারাপ হতে শুরু করে। একে তারা বলছেন, সেপটিক শক। এতে প্রণব মুখোপাধ্যায়ের রক্তচাপ কমে যায় এবং শরীরে অক্সিজেনের প্রবাহ কমে যায়। সাধারণ অসুস্থতা নিয়ে চিকিৎসা নিতে গেলে তার করোনা সংক্রমণের কথাও জানা যায়। মৃত্যুর সময় তার ফুসফুসে সংক্রমণও ছিল। এর আগে বাথরুমে পরে গিয়ে তার মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বাধে। চিকিৎসকরা অস্ত্রপাচার করে সেই রক্ত বের করতে পারলেও প্রণব মুখোপাধ্যায়ের অবস্থা ক্রমাগত খারাপ হতে থাকে।

প্রণব মুখার্জির মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের তৃণমুল এনডিএম। দলের চেয়ারম্যান জননেতা খোকন চৌধুরী এক শোক বার্তায় বলেন, ভারতের চাণক্য প্রণব মুখার্জি বাংলাদেশের মানুষের অকৃত্রিম বন্ধু ছিলেন। বিশেষ করে বাংলা ভাষাভাষি মানুষ তাঁকে খুব ভালবাসতেন। বাঙালী জাতীর পথপ্রদর্শক ও নেতা ছিলেন। তার মৃত্যুতে বাঙালী জাতি ও বাংলা ভাষাভাষি মানুষ পরম এক বন্ধু ও নেতাকে হারিয়েছে। তার বিদেহী আত্নার শান্ত কামনা করে নিহতের পরিবার ও স্বজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন জননেতা খোকন চৌধুরী।