নিজস্ব প্রতিবেদক :

চট্টগ্রাম মহানগরীতে রোগ নির্ণয়ের সাথে যুক্ত ৩৮টি ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিবেশগত ছাড়পত্র বাতিল করেছে চট্টগ্রাম পরিবেশ অধিদপ্তর। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হালনাগাদ লাইসেন্স না থাকায় পরিবেশগত ছাড়পত্র বাতিল করা হয়েছে গণমাধ্যমে পাঠানো এক তথ্যে জানিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর।

গত ১৯ আগস্ট পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের পরিচালক মো. নূরুল্লাহ নূরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে পরিবেশ সংরক্ষণ আইন-১৯৯৫ অনুযায়ী পরিবেশ ছাড়পত্র বাতিল করা হয়।

প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে, হালিশহরের অর্গান হসপিটাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, চাঁন্দগাওয়ে রয়েল প্যাথলজি সেন্টার, মেডিকেল স্কয়ার, খুলশীর সিইআইটিসি লেন্স প্রসেসিং ইউনিট, হামজারবাগের সিটি লাইফ ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্স, আগ্রাবাদের সানওয়ে মেডিক্যাল সেন্টার, বারিক বিল্ডিংয়ের সানওয়ে মেডিকেল সেন্টার, মনসুরাবাদ, জামালখান ও ডবলমুরিংয়ের সূর্যের হাসি নেটওয়ার্কের তিনটি শাখা, পাঁচলাইশের দি হেলথ হোম (প্রা.)লি., চকবাজারের উডল্যান্ড ডায়াাগনস্টিক সেন্টার, পাঁচলাইশ এলাকার চিটাগং কেমোথেরাপি সেল সেন্টার, রঙ্গিপাড়া এলাকার নিষ্কৃতি ক্লিনিক, উত্তর কাট্টলী ও চান্দগাঁওয়ের ইমেজ সূর্যের হাসি ক্লিনিকের দুটি শাখা, আন্দরকিল্লা এলাকার মুন ডায়াগনস্টিক সেন্টার, আগ্রাবাদের রোজভ্যালি হেলথ সেন্টার, নতুন বাজার এলাকার কিউম্যাক্স হেলথ কেয়ার, হালিশহরের মেডিকেয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, বন্দর ফ্রি পোর্ট এলাকার মডার্ন ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার, বাকলিয়া ও অক্সিজেন মোড়ের ব্র্যাক যক্ষ্মা নির্ণয় কেন্দ্রের দুটি শাখা, পতেঙ্গার কাঠঘর ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার, রামপুরের এম এন ক্লিনিক্যাল রিসার্চ সেন্টার, ঈদগাঁ এলাকার মেডিসেভ প্যাথলজি ল্যাব, জামালখানের ল্যাব ওয়ান হেলথ সার্ভিসেস, সদরঘাটের পালস ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরি অ্যান্ড ডায়াগনসিস, জামালখান রোডের দি মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি, আগ্রাবাদ এক্সেস রোডের মেডিসন মেডিক্যাল সার্ভিসেস লি., প্যানাসিয়া ক্লিনিক্যাল ল্যাব প্রা. লি., মেহেদীবাগের হরমোন ও ডিএনএ সেন্টার, কে বি ফজলুল কাদের রোডের কর্ণফুলী ব্লাড ব্যাংক অ্যান্ড থ্যালাসেমিয়া সেন্টার, খুলশীর চট্টগ্রাম কিডনি ফাউন্ডেশন, শেরশাহ কলোনীর বায়েজিদ ডায়াগনস্টিক সেন্টার, প্রবর্তক মোড়ের বাংলাদেশ আই হসপিটাল লি., কালুরঘাটের হেলথ লাইন ডায়াগনস্টিক লিমিটেড এবং কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকার মেডিম্যাক্স ডায়াগনস্টিক সেন্টার।

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের পরিচালক মো. নূরুল্লাহ নূরী বলেন, ‘অনেকদিন ধরে পরিবেশগত ছাড়পত্র নবায়নের জন্য ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোকে চিঠি দেয়া হয়েছে। কিন্তু তারা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইসেন্সই নবায়ন করেননি। এখন যাদের লাইসেন্স নবায়ন নেই এমন ৩৮ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিবেশগত ছাড়পত্র বাতিল করা হয়েছে।’

এবিষয়ে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বী বলেন, ‘লাইসেন্স নবায়ন করার শেষ কর্মদিসব ছিল ২৩ আগস্ট। শেষ পর্যন্ত যাঁরা আবেদন করেছেন তাদের তালিকা করা হচ্ছে। যাদের লাইসেন্স থাকবে না ভবিষ্যতে তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’