নিজস্ব প্রতিবেদক :
চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীতে প্রায় সাত কোটি টাকার ২ হাজার ২৪২ টন স্টিল স্ক্র্যাপ নিয়ে আবুল খায়ের গ্রুপের পণ্যবাহী একটি জাহাজ ডুবে গেছে। বুধবার (৮ জুলাই) ভোর রাতে কর্ণফুলী নদীর সদরঘাট অংশে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বঙ্গোপসাগরে প্রবল জোয়ারে স্রোতের টানে এমভি বর্নিয় প্রিন্স-২ নামের জাহাজটি দুর্ঘটনায় পড়ে বলে জানান চট্টগ্রাম বন্দরের পরিচালনা পরিষদের সদস্য মো. জাফর আলম। তিনি জানান, নাবিকের অসাবধানতার কারনে এই দুর্ঘটনাটি হয়েছে। এতে বন্দরের কোন সমস্যা হয়নি। বন্দরের কার্যক্রম সচল রয়েছে।

বন্দর সূত্র জানায়, চট্টগ্রামের শীর্ষস্থানীয় শিল্প গ্রুপ আবুল খায়েরের মালিকানাধীন এ কে এস স্টিলের জন্য আমেরিকার অকল্যান্ড থেকে এমভি দরিয়া যমুনা নামের একটি মাদার ভ্যাসেল ৩৪ হাজার ৮০০ টন স্টিল স্ক্র্যাপ নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের বহিনোঙরে পৌঁছে। সেখান থেকে এমভি বর্নিয়-২ নামের জাহাজেটি পণ্যগুলো লাইটারিং করছিল।

সূত্র আরো জানায়, লাইটারিং করে জাহাজটি নেভাল বিচের কাছে নদীতে অবস্থান করছিল। বৃহ¯পতিবার সকালে জাহাজটি থেকে পণ্য খালাসের কথা ছিল। সেজন্য জাহাজের মাস্টার আগে ভাগে ঘাটের কাছাকাছিতে অবস্থান নেয়ার উদ্যোগ নেন। বুধবার ভোর রাতে তিনি নেভাল বিচ থেকে সদরঘাটের দিকে যাত্রা করেন।

সূত্রগুলো জানায়, নদীতে এ সময় ভর জোয়ার ছিল। পানির স্রোত ছিল প্রচন্ড। আবহাওয়া খারাপ ছিল। জাহাজটির মাস্টারকে এই সময় জাহাজ নিয়ে স্রোতের বিপরীতে যেতে না করা হলেও তিনি তা না মেনে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যেতে থাকেন। জাহাজটি সদরঘাটের কাছাকাছি পৌছালে সেটি ছিঁড়ে যায়।

একপর্যায়ে জাহাজটি সদরঘাট এলাকায় ২নং মোরিং বয়ার সাথে ধাক্কা খায়। ফলে জাহাজটির তলা এবং পাশে ফেটে গিয়ে ডুবতে শুরু করে। জাহাজের মাস্টারসহ ১৪ নাবিককে অপর একটি জাহাজ উদ্ধার করা হয়। পরে জাহাজটির বডি পুরোপুরি ডুবে যায়।

জাহাজে প্রায় সাত কোটি টাকা দামের ২ হাজার ২৪৬ টন স্ক্যাপ পণ্য রয়েছে। পণ্যগুলো হ্যাজের ভিতরে রয়েছে। এছাড়া জাহাজটিতে তিনশ লিটারের মতো জ্বালানি তেল রয়েছে। যা কর্ণফুলীতে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা করা হচ্ছে। জাহাজটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে বলে বন্দর সুত্র জানায়।