এনামুল হক নাবিদ, আনোয়ারা:
বিয়ের ফাঁদে ফেলে আনোয়ারা উপজেলার দশম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে (১৬) কৌশলে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মোহাম্মদ সেলিম (২২) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটক যুবক বাঁশখালী উপজেলার প্রেমাশিয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রেমাশিয়া লোয়াইপাড়া মন্তববাড়ির আবু ছালেকের ছেলে।

রোববার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ। তিনি জানান, শনিবার (৬ জুন) দিবাগত রাতে চট্টগ্রামের পতেঙ্গার লালদিয়া তুলাতলী এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে মোহাম্মদ সেলিমকে আটক করা হয়। এ সময় ওই স্কুলছাত্রীকেও উদ্ধার করা হয়েছে।

দুলাল মাহমুদ বলেন, এ ঘটনায় ধর্ষণের অভিযোগে আনোয়ারা থানায় একটি মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। ঘটনার সাথে কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

থানা সূত্র জানায়, আনোয়ারা উপজেলার চাতরী চৌমুহনী বাজারের একটি শপিংমলে কেনাকাটা করার সময় সেলিমের সঙ্গে পরিচয় হয় স্কুলছাত্রীর। এ সময় কৌশলে ওই ছাত্রীর কাছ থেকে মোবাইল নম্বর নিয়ে কয়েকদিন ফোনে কথা বলে সেলিম। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই স্কুলছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে পেলে। সর্বশেষ গত সোমবার (১ জুন) সন্ধ্যায় সেলিম তাকে ডেকে নিয়ে বাড়ির রাস্তার পাশে দেখা করার কথা বলে অটোরিক্সাযোগে নিয়ে যায়।

পরে পরিবারের লোকজন ওই ছাত্রীকে ঘরে না পেয়ে বিভিন্ন আত্নীয়স্বজনের বাড়িতে খোঁজ করতে থাকে। অনেক খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে তার অভিভাবক শুক্রবার আনোয়ারা থানায় একটি নিখোঁজের ডায়েরি করে। সেদিন রাতেই ওই স্কুলছাত্রী তার বড় বোনকে ফোন করে জানায় সেলিম নামের এক যুবক পতেঙ্গার একটি বাসায় তাকে আটকে রেখে একাধিকবার শারীরিক নির্যাতন করে। ফলে অভিযান চালিয়ে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার ও সেলিমকে আটক করে আনোয়ারা থানা পুলিশ।