স্থানীয় প্রতিনিধি, বাঁশখালী:
চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের পূর্ব ইলশা গ্রামে পুলিশের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে আনছার প্রকাশ কালু নামে একব্যক্তি নিহত হয়েছে। তিনি স্থানীয় মদিনা ব্রিকফিল্ডের মালিকের ছোট ভাই।

শনিবার (১৬ মে) ভোর ৩ টার দিকে মদিনা ব্রিকফিল্ডের সামনে বন্ধুকযুদ্ধেও এই ঘটনা ঘটে বলে জানান বাঁশখালী থানার ওসি রেজাউল করিম মজুমদার। তিনি জানান, কালু বাঁশখালীর একটি মসজিদের তারাবির নামাজের দুই কোরআনে হাফেজ ইমাম হত্যাকান্ডের আসামি।

ওসি রেজাউল করিম মজুমদার জানান, দুই হাফেজ হত্যার কয়েকজন আসামি ব্রিকফিল্ডে অবস্থান করছে খবর পেয়ে শনিবার ভোর ৩টার দিকে আমরা অভিযান চালাই। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ভেতর থেকে পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছোঁড়া হয়। আত্নরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।

এক পর্যায়ে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা পিছু হটলে পুলিশ ঘটনাস্থলে একজনকে পড়ে থাকতে দেখে। পুলিশ উদ্ধার করে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় পুলিশের চার সদস্য আহত হয়েছে বলে দাবি করেন ওসি রেজাউল করিম মজুমদার।

প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টার দিকে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল আবেদীন ঝন্টুর লোকজনের উপর অতর্কিতে আক্রমণ চালায় মদিনা ব্রিকফিল্ডের মালিক নুরুল আবছারের ভাই আনসার প্রকাশ কালু ও সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। তারাবির নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে তাদের ছোঁড়া গুলিতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান হাফেজ খালিদ বিন ওয়ালিদ। গুলিবিদ্ধ অপর হাফেজ ইব্রাহিম বুধবার রাতে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।