নিজস্ব প্রতিবেদক :
শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের মা ও চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হাসিনা মহিউদ্দিনসহ চট্টগ্রামে একদিনে ১০৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে সাইফুল ইসলাম নামে একজন সাংবাদিকও রয়েছেন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত দাড়িয়েছে ৪১৭ জনে।

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বুধবার সকালে এ তথ্য জানান। তিনি জানান, মঙ্গলবার রাতে বিআইটিআইডি ল্যাবে ২৪৮ টি নমুনা পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এরমধ্যে করোনা শনাক্ত হয় ৩১ জনের। যার মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরীতে ২৫, জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় ১ ও সীতাকুন্ডে ১জন করোনা শনাক্ত হয়। বাকী ৪ জনের মধ্যে লক্ষীপুর জেলার ১, ফেনী জেলার ২ ও রাঙামাটি জেলার ১ জন রয়েছে।

এছাড়া চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে ১২২টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ৫৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এরমধ্যে নগরের ৪৯ জন এবং চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলার ৪ জন এবং কক্সবাজারের জেলার ১জন রয়েছে। এছাড়া পুরাতন একজন রোগীর দ্বিতীয় বার নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ আসে।

সিভাসুর ল্যাবে ৭০টি নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে ২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রামে ২, ফেনী-২ নোয়াখালী-১, লক্ষীপুরের -১৫ করোনা শনাক্ত হয়। এছাড়া কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে শনাক্ত হয় লোহাগাড়া উপজেলার ৪ জনের এবং সাতকানিয়া উপজেলার ১ জনের। সবমিলিয়ে একদিনে সর্বোচ্চ ১০৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়। আর এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪১৭ জনে।

সিভিল সার্জন আরো জানান, চসিকের সাবেক মেয়র প্রয়াত এ বি এম মহিউদ্দিনের স্ত্রী হাসিনা মহিউদ্দিনের পরিবারের সবার নমুনা সংগ্রহ করা হলেও শুধু তারই রিপোর্ট করোনা পজেটিভ আসে। তবে চশমা হিলের বাসিন্দা একজন পুরুষ ও একজন নারীরও রিপোর্ট পজেটিভ আসে। বর্তমানে তিনি নিজ বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

একই দিন হাসিনা মহিউদ্দিনের সন্তান শিক্ষা উপমন্ত্রী ও চট্টগ্রাম ৯ আসনের সংসদ সদস্য মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও তার পরিবারের সদস্যরা ঢাকায় করোনা পরীক্ষা করেন। কিন্তু তাদর নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।

এর আগে রোববার সাবেক মেয়র বিএবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী ছোট ছেলে বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীনের শরীরে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ায় নগরীর চশমা হিলের তাদের ভবনটি লকডাউন করে দেওয়া হয়। তিনি শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেলের ছোট ভাই। এরপর নওফেলসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের নমুনা পরীক্ষার জন্য সংগ্রহ করা হয়।

মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছোট ছেলে বোরহানুল হাসান চৌধুরী সালেহীন স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে কিছুদিন ঢাকায় ছিলেন। সেখান থেকে ফেরার পর গত বৃহ¯পতিবার তার জ্বর আসে। নমুনা পরীক্ষার জন্য বিআইটিআইডিতে পাঠালে সেখান থেকে ১০ মে রাতে পজিটিভ ধরা পড়ে। তাকে আপাতত বাসায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।