স্থানীয় প্রতিনিধি, ফটিকছড়ি :
ফটিকছড়িতে পারিবারিক শত্রুতার জের ধরে ৪ বছরের শিশু দিহানকে ছুরিকাঘাতে নির্মমভাবে খুন করে আপন চাচী রেশমা আক্তার। ঘটনার পর রোববার রাতে সন্দেহজনকভাবে চাচিকে আটক করার পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা স্বীকার করেন তিনি।

ফটিকছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাবুল আক্তার জানান, নিহত শিশু দিহানের আপন চাচী রেশমা আক্তার নিজ হাতে ছুরি দিয়ে ১৬টি আঘাত করেন। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর সব রক্ত তিনি নিজ হাতে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে বাচ্চাটিকে কলাপাতা মুড়িয়ে ঘরের পাশে পরিত্যক্ত লাকড়ির ঘরে লুকিয়ে রাখে।

ওসি বলেন, ঘটনায় নিহত শিশুর মা জনি আক্তার বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে চাচি রেশমা আক্তারকে (২৫) সন্দেহজনকভাবে গ্রেপ্তার করা হয়। চাচীর স্বীকারোক্তিতে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিটিও উদ্ধার করা হয়েছে। একটি সবজি কাটার ছুরি দিয়ে খুন করা হয় শিশু দিহানকে।

উল্লেখ্য, গতকাল ২৬ এপ্রিল দুপুরে উপজেলার পাইন্দং ইউনিয়নের দক্ষিণ পাইন্দং কালু বাপের একটি লাকড়ির ঘর থেকে নাড়িভুঁড়ি বের হওয়া অবস্থায় দিহানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত দিহান পাইন্দং কালু বাপের বাড়ীর দিদারুল আলমের ছেলে।