নিজস্ব প্রতিবেদক:
চট্টগ্রামের ১০ জেলার করোনা শনাক্তের একমাত্র ল্যাব ছিল সীতাকুন্ডে অবস্থিত বিআইটিআইডি হাসপাতালে। দীর্ঘ একমাস ধরে সীমিত পরিসরে করোনা শনাক্তকরণ কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল হাসপাতালটি। এ নিয়ে নানা সমালোচনার মুখে পড়ে স্বাস্থ্য বিভাগ।

অবশেষে রোববার সকালে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি জানিয়েছেন করোনা শনাক্তের দ্বিতীয় ল্যাব চালুর কথা। তিনি জানান, চট্টগ্রামের ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিভাসু) নতুন স্থাপিত এই ল্যাব শনিবার থেকে চালু হয়েছে।

তিনি জানান, সিভাসুর এই ল্যাবে শনিবার প্রাথমিকভাবে ২০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। বিআইটিআইডি হাসপাতাল থেকে এসব নমুনা পাঠানো হয়। আর রাতে প্রকাশিত ফলাফলে সবকটির করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসে।

সিভাসুর উপ-পরিচালক খলিলুর রহমান বলেন, বিআইটিআইডি থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হবে সিভাসুর নতুন ল্যাবে। বিআইটিআইডি থেকে ইতোমধ্যে ৪৮০টি কিট পাওয়া গেছে। ২ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং ৬ জন শিক্ষার্থী করোনার নমুনা পরীক্ষার কার্যক্রমের সঙ্গে সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবেন। একটি পিসিআর মেশিনে প্রতিদিন ১০০টি নমুনা পরীক্ষা করে ফলাফল বিআইটিআইডিতে পাঠিয়ে দেয়া হবে। সেখান থেকে সমন্বিতভাবে ফলাফল প্রকাশ করা হবে। তবে পর্যাপ্ত কিট পাওয়া গেলে এই ল্যাবে দিনে ২০০-২৫০টি পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।