মো. আবু মনসুর ফটিকছড়ি :
হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী ট্রাস্টের চেয়ারম্যান শাহ্সূফী সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী (মা.জি.আ.)’র উদ্যোগে পিপিই স্যানিটাইজারসহ ও দেশব্যাপী ৪০ হাজার পরিবারের মাঝে পবিত্র রমজান উপলক্ষে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম চলছে।
করোনা মোকাবেলায় ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ বাহিনী, প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তার কথা ভেবে ১৯ এপ্রিল চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: মাসুদ রানার নিকট ১৫০ পিস পিপিই ১০০ পিস স্যানিটাইজার, চট্টগ্রাম পুলিশ কমিশনার মাহবুবুর রহমান বিপিএম এর নিকট ১০০ পিস পিপিই ও ১০০ পিস স্যানিটাইজার স্থানান্তর করেন।
২০ এপ্রিল সোমবার ফটিকছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইয়েদুল আরেফীন এর নিকট ৮৫ পিস পিপিই ও ৯০ পিস স্যানিটাইজার স্থানান্তর করেন।
এ সময় ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক কাজী মহসীন চৌধুরী, খাদেম মো: সালাহ উদ্দিন হযরত মাওলানা বাকের আনসারী, এইচএম মঞ্জুরুল আনোয়ার ইসলাম চৌধুরী, আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভান্ডারীয়ার চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক কাজী মো: শহীদুল্লাহ, কেন্দ্রীয় সহপ্রচার সম্পাদক শাহ্ মো: ইব্রাহিম মিয়া মাইজভান্ডারী, এম এস চৌধুরী ফিরোজ, মো: হোসাইন উদ্দীন ও শাহেদুল আলম স্বাস্থ্য সুরক্ষায় এ সমস্ত সামগ্রী প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের হাতে তুলে দেন।
এছাড়া আসছে মাহে রমজান উপলক্ষে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারীর উদ্যোগ ও নির্দেশে ৪০ হাজার পরিবারের মাঝে ২০০ উপজেলায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তার মধ্যে ফটিকছড়ি উপজেলায় আজ ২০ এপ্রিল ৬০০০ পরিবারের মাঝে বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এসব খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাউল, ডাল, আলু, পেয়াজ, ছোলা, চিনি, লবন, তৈল, দুধ পাউডার, চা পাতাসহ বিভিন্ন সামগ্রী।
হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী এর আগে ২২ মার্চ-২৬ মার্চ পর্যন্ত ২০ হাজার লোকের মাঝে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান, মাস্ক, জীবাণু নাশকসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করেন। ২৬ মার্চ-১৪ এপ্রিল পর্যন্ত তাঁর উদ্যোগে দেশব্যাপী সরকারের নির্দেশে ঘরবন্দী থাকা কর্মহীন, অসহায় ৬০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন।
এসব কাজে হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারীকে সহযোগীতা করেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হযরত সৈয়দ মইনুদ্দীন আহমদ মাইজভান্ডারী ট্রাস্ট, আন্জুমানে রহমানিয়া মইনীয়া মাইজভান্ডারীয়া ও মইনীয়া যুব ফোরামের স্বেচ্ছা সেবকবৃন্দ।
হযরত সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘এই ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ইনশাল্লাহ। তিনি এই দুর্যোগে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিত্তবানদের আহ্বান জানান।’