মুহাম্মদ কমরুদ্দিন, চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম) :
করোনায় চট্টগ্রামের চন্দনাইশের ৪ প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ১৯ এপ্রিল রোববার বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৩ টায় সৌদি আরবের মক্কার একটি হাসপাতালে মারা যায় মোহাম্মদ জমিরউদ্দিন। জমির উদ্দিন চন্দনাইশের উত্তর হাশিমপুর এলাকার নছির মোহাম্মদ পাড়ার মোহাম্মদ আবুল হাশেমের পুত্র।

গত ১৫ বছর যাবৎ সে সৌদি আরব প্রবাসী ছিল। তার চার বছরের ১ কন্যা ও ৭ মাসের ১ পুত্র সন্তান রয়েছে বলে জানান তার শ্বশুর আব্দুল আলীম সওদাগর।

এর আগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৭ এপ্রিল শুক্রবার বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টায় মারা যান চন্দনাইশের হাশিমপুর ইউনিয়নের সিকদারবাড়ীর মাওলানা সাবের আহমদের ছেলে মাওলানা তৌহিদুর রহমান (৪৫)। নিহতের সৌদি প্রবাসী মামা মোহাম্মদ মনির আহমদ এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, মারা যাওয়ার কিছু দিন আগে তার সর্দি, কাশি, জ্বর দেখা দিলে তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে পরীক্ষা করানোর পর তার শরীরে করোনা ভাইরাস পজিটিভ পাওয়া যায়। সে ৪ কন্যা সন্তানের জনক। গত তিন বছর আগে সে সৌদি আরবে যায়, সাত মাস আগে দেশে ফিরে বড় মেয়ের বিয়ে দেয়।

এর আগে ১৬ এপ্রিল সৌদি আরবের মদিনার ওহুদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান উপজেলার বরকল ইউনিয়নের কানাইমাদারি এলাকার মরহুম ছৈয়দ আহমদ চৌধুরীর ছেলে ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জুয়েল (৫০)। তার পরিবারিক সূত্র এ তথ্য জানায়।

এর আগে উপজেলার বরমা ইউনিয়নের চরবরমা এলাকার মোবারক আলী তালুকদার বাড়ীর নুরুজ্জামান তালুকদারের ছেলে রাশেদুল আলম তালুকদার (৩৫) গত ১৩ এপ্রিল সৌদি আরবের একটি হাসপাতালে মারা যায়।

রাশেদের বড় ভাই মোরশেদ তালুকদার জানান, মৃত্যুর ১৪ দিন আগে সর্দি, কাশি, জ্বর নিয়ে মদিনার একটি হাসপাতালে ভর্তি হয় রাশেদ। সেখানে পরীক্ষা নিরিক্ষার পর করোনা ভাইরাস পজিটিভ পাওয়া যায় তার শরীরে। অবশেষে ১৪ দিন পর গত ১৩ এপ্রিল বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টায় ঐ হাসপাতালে সে মারা যায়। রাশেদ ১০ ভাইবোনের মধ্যে সপ্তম। তার স্ত্রী ও দুই পুত্র সন্তান রয়েছে।