বাঁশখালী প্রতিনিধি:
করোনার বিস্তার রোধে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলাকে লকডাউন ঘোষণা করেছে প্রশাসন। শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টা থেকে লকডাউন কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোমেনা আক্তার।
ইউএনও মোমেনা আক্তার বলেন, বাঁশখালীর নিকটবর্তী সাতকানিয়া উপজেলায় কয়েকজন করোনা রোগী পাওয়া গেছে। আনোয়ারায়ও করোনা রোগী পাওয়া গেছে। বাঁশখালীর একটি হাসপাতালের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। সার্বিক বিবেচনায় বাঁশখালী এখন বেশি ঝুঁকিতে আছে। সেজন্য এই উপজেলাকে লকডাউন করা হয়েছে।
তিনি জানান, লকডাউন ঘোষণার পর ১৪টি ইউনিয়ন এবং একটি পৌরসভা এলাকায় মাইকিং করা হয়েছে। বাঁশখালীর সঙ্গে আনোয়ারা ও সাতকানিয়া উপজেলা এবং কক্সবাজারের সঙ্গে চারটি প্রবেশপথে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। পুলিশ, গ্রাম পুলিশ ও আনসার সদস্যরা চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করছেন।
তিনি বলেন, জরুরি পণ্য পরিবহন ছাড়া কোনো যানবাহন বাঁশখালীতে ঢুকতে এবং বের হতে পারবে না। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হতে পারবেন না। অন্যান্য জেলা-উপজেলা থেকে জনসাধারণও বাঁশখালীতে আসতে পারবে না। বাঁশখালী থেকেও কেউ বের হতে পারবেন না। বাঁশখালীতে দুটি নৌপথেও পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে।