নিজস্ব প্রতিবেদক:
করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সারাদেশের সাথে ২৪ মার্চ থেকে চট্টগ্রামেও যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। কিন্তু কর্ণফুলী নদীতে নৌকায় যাত্রী পারাপার চলছিল জোরেশোরে। প্রশাসনের কারোই নজরে বিষয়টি তেমন আসেনি।

তবে দীর্ঘ ১৯ দিন পর আজ শনিবার সন্ধ্যায় এ বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারী করেন চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান।

এক আদেশে জারী করা গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে যানবাহন ও লোকজনের চলাচলের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করার পরও নগরীর সদরঘাট, অভয়মিত্র ঘাট, বাংলাবাজার ঘাট, ব্রীজঘাট, ৪নং ঘাট, ৯নং ঘাট, ১২নং ঘাট, ১৪নং ঘাট, ১৫নং ঘাট, টিংটোঙ্গারের ঘাট ও মাতব্বর ঘাট সহ আরো কিছু এলাকায় কর্ণফুলী নদীতে নৌকাযোগে যাত্রী পারাপার হচ্ছে।

এতে করে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির আশংকা রয়েছে। তাই শনিবার থেকে সিএমপি কর্তৃক নগরীর সকল ঘাট হতে নৌযান চলাচলের উপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হলো।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জরুরী সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি এবং ঔষধ, খাদ্যদ্রব্য ও রপ্তানি পণ্য ছাড়া অন্য কোন উদ্দেশ্যে নৌযানযোগে পরিবহন ও যাত্রী পারাপার এখন থেকে বন্ধ থাকবে। জরুরী সেবা, ঔষধ ও খাদ্যদ্রব্যের ক্ষেত্রে পারাপারের সময় অবশ্যই সীমিত আকারে যাত্রীর সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে পারাপার করতে হবে।

সিএমপির অতিরিক্ত উপকমিশনার (জনসংযোগ) আবু বকর সিদ্দিক জানান, গত বুধবার বিকেলে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীতে এক নৌকায় ২৬ জন যাত্রী বহনের দায়ে নৌকার মালিক, শিপিং কো¤পানি এবং যাত্রীদের জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। নগরীর পতেঙ্গা থানার ১৫ নম্বর ঘাট এলাকায় নৌকাটি আটক করে যৌথবাহিনী।

এসময় তাদের জেলা প্রশাসনের পতেঙ্গা সার্কেলের সহকারী ভূমি কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এহসান মুরাদের পরিাচলিত ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়।

এহসান মুরাদ জানান, এস এন শিপিং কো¤পানি নামে একটি প্রতিষ্ঠানের একটি জাহাজ ২৬ জন কর্মচারী নিয়ে কর্ণফুলী নদী পারাপার করছিল। বিষয়টি দেখার পর যৌথবাহিনী মাইকিং করে নৌকাটিকে তীরে নিয়ে আসে। ওই নৌকায় সর্বোচ্চ আটজন বহন সম্ভব।

তাছাড়া করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ঘোষিত সামাজিক দূরত্ব তারা মানেননি। তাই তাৎক্ষণিকভাবে এস এন শিপিং করপোরেশনের প্রতিনিধিকে ডেকে আনা হয়। তারা দোষ স্বীকার করেন। তাদের ২০ হাজার টাকা, নৌকার মালিককে ৫ হাজার টাকা এবং নৌকায় থাকা যাত্রীদের ২ হাজার ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। নৌকাটি জব্দ করা হয়েছে।