শুভ চট্টগ্রাম ডেস্ক :
বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বেচে থাকাটাই এখন বড় দায়। এই ভাইরাস সংক্রমণ রোধে পুরো বাংলাদেশ এখন লকডাউনে। সবাই যার যার ঘরে। এতে দেখা দিয়েছে তীব্র খাদ্য সংকট।

কিন্তু চট্টগ্রামের মোজাফফর বাদ আব্দুল আল নোমান আবাসিক এলাকায় অবস্থিত ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি দেশের এই করুন পরিস্থিতিতে ছাত্রদের সেমিস্টার ফী পরিশোধের উদ্দেশ্যে নোটিশ প্রদান করেছে। অথচ এই চলমান সংকটময় মুহূর্তে ইউজিসি সকল ধরনের অনলাইন পরীক্ষা বাতিল ও ভর্তি বাতিল ঘোষণা করেছে।

বলা বাহূল্য দেশের ইউজিসি বোর্ড অনলাইনে পরীক্ষা না নেওয়ার আদেশ প্রদান করেছে তা তারা না মেনে পরীক্ষা নিচ্ছেন। এ পরিস্থিতে এই ধরনের সিদ্ধান্ত বা নোটিশ কতটুকু যুক্তিযুক্ত তা ভাবা উচিত। যেখানে বাড়িওয়ালারা পর্যন্ত বাড়ি ভাড়া মাফ করে দিচ্ছেন। যেখানে চাকরি করে পড়ালেখা করা ছাত্ররা বেতন পাচ্ছেন না সেখানে এই ইউনিভার্সিটির এহেন নোটিশ কি আসলেই যুক্তিযুক্ত??

কি শিখছে এই ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির ছাত্ররা? আর এরা কারা যাদের মধ্যে এতটুকু মানবিক মূল্যবোধ পর্যন্ত নেই??

প্রসঙ্গত, এই ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি যা বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান জনাব আব্দূল আল নোমান কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত। ফলে এই ইউনিভার্সিটি সরকারের কোন নির্দেশনা তো মানছেনই না। মানবিক মূল্যবোধও হারিয়েছে ফেলেছেন সংশ্লিষ্টরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক
আমরা ক‘জন ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী