মো. কমরুদ্দিন, চন্দনাইশ প্রতিনিধি :
চট্টগ্রামের চন্দনাইশে একটি ও পাশ্ববর্তি সাতকানিয়ায় ১৩ বাড়ি লকডাউন করেছে প্রশাসন। চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত হওয়া ব্যক্তির আত্নীয় এবং সংস্পর্শে থাকায় এসব বাড়ী লকডাউন করা হয়েছে।

চন্দনাইশে লকডাউন করা বাড়ীটি দোহাজারি পৌরসভার আব্দুল আলীম ফকির বাড়ির মোহাম্মদ শাহ আলমের। তিনি চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত ব্যক্তির মেয়ের শ্বশুড় বাড়ির আত্নীয়। আর সাতকানিয়ায় লকডাউন করা ১২ পরিবারের সবাই সৌদি ফেরত মেয়ের শ্বশুড় বাড়ি।

চন্দনাইশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার শাহীন হাসান চৌধুরী ও সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর এ আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নূর এ আলম বলেন, সাতকানিয়া উপজেলার পুরানগড় ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের চারটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। ওই বাড়িগুলো চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত ব্যক্তির বেয়াই ও বেয়াইন বাড়ি। ওই বাড়িগুলোতে ১২টি পরিবার বসবাস করেন। পুলিশি পাহারা বসিয়ে বাড়িগুলোতে যে কারো প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একই সঙ্গে ওই চারটি বাড়ি থেকে কেউ বের হতে পারবেন না।

তিনি জানান, শুক্রবার (৩ এপ্রিল) রাতে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেজ (বিআইটিআইডি) হাসপাতালে কোভিড-১৯ রোগ শনাক্তকরণ পরীক্ষায় ওই ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। ৬৭ বছর বয়সী আক্রান্ত ওই ব্যক্তি বর্তমানে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন বিভাগে আছেন।