হাটহাজারী সংবাদদাতা :
করোনা নিয়ে আতংকের কোনো কারণ নেই। হাটহাজারীতেই আবিস্কার হলো ওষুধ। ফেসবুকে এমন প্রচারণা চালিয়ে সিরাপ বিক্রী করে আসছিল হাটহাজারী উপজেলার চৌধুরী হাটের জালিয়া পাড়া এলাকার মনসুর আলী।
খবর পেয়ে সোমবার সকালে ছদ্নবেশে এই ওষুধ কিনতে যান হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমীন। রুহুল আমিনের হাতে তুলে দেন বিশ্বজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি করা করোনাভাইরাসের বহুল প্রতীক্ষিত ওষুধ!
যা একটি কাশির সিরাপ। সিরাপ দেখে চোখ কপালে উঠে ইউএনও রুহুল আমিনের। সঙ্গে সঙ্গে আটক করা হয় মনসুর আলীকে। আর করোনাভাইরাসের ওষুধ আবিষ্কারের নামে প্রতারণার দায়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় তাকে।
হাটহাজারী ইউএনও রুহুল আমিন এ প্রসঙ্গে বলেন, গত কয়েককদিন ধরে শুনে আসছি হাটহাজারী উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় করোনাভাইরাসের ওষুধ বিক্রি হচ্ছে। চৌধুরী হাটের ইন্টার্ন শপিং সেন্টারের পাশে জালিয়া পাড়া এলাকার মনসুর আলী নামে এক ব্যক্তি ফেসবুকে এই ওষুধ আবিষ্কারের ঘোষণা দেয়। ওষুধ কিনে প্রতারিত হচ্ছিল সাধারণ মানুষ।
রুহুল আমিন বলেন, সোমবার সকালে ছদ্মবেশে তার কাছ থেকে ওষুধ কিনতে যাই। তিনি ৩০০ টাকায় ১২০ দিন সেবনের পরামর্শ দিয়ে দুই বোতল ওষুধ দেন। বোতলের লেভেল দেখে বুঝলাম এগুলো কাশির সিরাপ। পরে তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে তিনি প্রতারণার কথা স্বীকার করেন। ফলে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।