নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনা আক্রান্ত সন্দেহে চট্টগ্রামে এ পর্যন্ত ৩০ জনের পরীক্ষা হয়েছে। কিন্তু কারো শরীরে ধরা পড়েনি করোনাভাইরাস। তাই বলা যায়, ত্রিশেও করোনামুক্ত চট্টগ্রাম। রোববার (২৯ মার্চ) সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি মিয়া বলেন এসব কথা।

তিনি বলেন, চট্টগ্রামে এখনও কোন করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি। কিট আসার পর থেকে এ পর্যন্ত ৩০ জনের শরীর পরীক্ষা করা হয়েছে। এরমধ্যে ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ ট্রিপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডিতে) পরীক্ষা হয়েছে ২২ জনের। বাকি ৮ জনের পরীক্ষা হয়েছে রাজধানী ঢাকার আইইডিসিআরে (রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান)। আশার কথা হচ্ছে-এখনো কোনো খারাপ সংবাদ পাওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকায় এখনো নিরাপদ চট্টগ্রাম। অবশ্য করোনা নিয়ে গত দু‘দিন ভালো অবস্থানে আছে বাংলাদেশও। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে কোনো করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি। অথচ এ সময়ে পরীক্ষা করা হয়েছে ১০৯ জনের।

এর আগেরও দিন দেশে কোনো করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি। অর্থাৎ গত ৪৮ ঘণ্টায় দেশে নতুন কোনো করোনা রোগী পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে চট্টগ্রামসহ সকল জেলার মানুষকে সচেতনতা বজায় রাখার আহ্বান জানান সেখ ফজলে রাব্বি মিয়া।

তিনি জানান, দেশে এ পর্যন্ত ৪৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৫ জন মারা গেলেও সুস্থ হয়েছেন ১৫ জন। বৃহত্তর চট্টগ্রামে গত ২৪ মার্চ কক্সবাজারে প্রথম করোনা আক্রান্ত নারী শনাক্ত হয়। দেশেই ফিরেই ওই নারী চট্টগ্রামের বহাদ্দারহাট নিউ চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার ছেলের বাসায় ওঠেন।

এরপর তিনি ছিলেন কক্সবাজারের খুটাখালী ও জেলা সদরের টেকপাড়ায় বড় ছেলে বাসায়। পরে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা খারাপ হলে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ঢাকায়। এ ঘটনায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর যেসব ডাক্তার-নার্স ওই নারীকে চিকিৎসা দিয়েছেন তাদের সবাইকে কোয়েরেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয় তার ছেলেসহ পরিবারের সদস্যদেরও।