নিজস্ব প্রতিবেদক : দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির কারান্তরীণ চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা ৬ মাসের জন্য স্থগিত রেখে সরকার তাকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

সাম্প্রতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে দুইটি শর্তে বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তি দেয়ার ক্ষেত্রে সরকারের সিদ্ধান্তের কথা উল্লেখ করে, প্রধানমন্ত্রীর সুপারিশক্রমে এ সংক্রান্ত একটি সুপারিশনামা আইন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) আইনমন্ত্রী আনিসুল হক নিজ বাসভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ সকল তথ্য জানান। তিনি জানান, খালেদা জিয়ার মুক্তির ক্ষেত্রে উল্লেখিত শর্ত দুইটির মধ্যে রয়েছে-এ সময়ের মধ্য খালেদা জিয়া নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে পারবেন। আর তিনি বিদেশ যেতে পারবেন না এবং অন্য হাসপাতালেও চিকিৎসা নিতে পারবেন না।

আইনমন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অনুমোদন দিলেই মুক্তি পাবেন খালেদা। এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে তাকে বিদেশে পাঠানো মানে তাকে ‘সুইসাইডের’ মুখে ফেলা। খালেদা জিয়া ঢাকার নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা নেবেন। তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না।

প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে রয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া। বর্তমানে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন।